অলংকার আমাদের কাছে সুপরিচিত এবং অত্যন্ত প্রিয় জিনিস। কিভাবে অলংকারের যত্ন নিতে হয় এবং সুরক্ষা করতে হয় তা জানা থাকলে আপনার সযত্নে জমাইয়া রাখা অলংকার সৌন্দর্য বর্ধনের এক আলাদা পৃথিবী তৈরী করবে এবং তা আপনার পরবর্তী প্রজন্মের কাছেও ঝকঝকে থাকবে।

সোনার আকাশ ছোঁয়া দাম আর ফ্যাশন পরিবর্তনের কারণে বেছে নিতে পারেন এই গহনাগুলি

আলো এবং তাপ থেকে সতর্ক থাকুন

সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি শুধু আমাদের ত্বকের ক্ষতি করে না বরং আলো এবং তাপ আমাদের রঙ্গিন দামী পাথরের স্থায়ীত্ব ও রঙ নষ্ট করে। দীর্ঘ সময় পর আলো এবং তাপ কিছু কিছু পাথরের রঙ নষ্ট করে দেয় এমনকি একেবারে নষ্ট করে দেয়।

যেমন- নীলা পাথর,  পোখরাজ পাথর, কনজাইট, শেল সেমিয়স, মুক্তা এবং অন্যান্য নারীসুলভ উপাদান যেমন- হাতির দাতের অলংকার যা কড়া আলোতে একরকম পুড়ে সাদা হয়ে যায়। অন্যান্য পাথর, বিশেষত এম্বার, যা অতিরিক্ত আলোতে আরো গাঢ়ো হয়ে যায়।

অতরিক্ত তাপ ও হঠাৎ তাপমাত্রা কিছু কিছু পাথরের ফাটল সৃষ্টি করে। তাপ সহজেই কিছু কিছু পাথরের প্রাকৃতিক আদ্রতা নষ্ট করে দেয়।

দৃষ্টান্ত স্বরূপ মুক্তা, যা ক্ষয় হয়ে যায়, ফাটল ধরে এবং রঙ নষ্ট হয়ে যায়। অপাল’স পাথর সাদা অথবা বাদামী রঙ্গে পরিণত হয়, সামান্য ফাটল থাকলে তা বড় আকার ধারণ করে এবং অপালসের নিজস্ব ধর্ম ফ্যাকাশে এবং অন্ধকার যায়গায় রঙ পরিবর্তন করা।

গয়না কিনতে  এখানে ঢুঁ মারতে পারেন আর ফরমায়েশ দিয়ে নিন আপনার পছন্দের গয়নাটি।

অতিরিক্ত আলো এবং তাপের কারণে সে তার নিজস্ব বৈশিষ্ট হারিয়ে ফেলে।

রাসায়নিক পদার্থ থেকে আপনার গয়না দূরে রাখুন

সোনা, রুপা এবং প্লাটিনাম এর গয়না রাসায়নিক পদার্থের সংস্পর্শে আসলে রঙ নষ্ট হয়ে যায় এবং ক্ষয় হয়ে যায়। কিছু পাথর আছে সেগুলোও নষ্ট হয়ে যায়।

এমনকি প্রতিদিন ব্যবহার্য্য লোশন, চুলের স্প্রে, পারফিউম এবং অন্যান্য কসমেটিক এর মধ্যে থাকা রাসায়নিক পদার্থ মুক্তা এবং অন্যান্য মূল্যবান পাথরের গয়নার উপরের অংশ নষ্ট করে ফেলে যেমন- নীলকান্তমণি পাথর।

ক্লোরিন মেশানো সুইমিং পুলে নামার আগে এবং বাসন-কোসন মাজার সময় আপনার সুন্দর গয়নাটি খুলে রাখুন।

যে সব পরিষ্কারকে এমোনিয়া নামক রাসায়নিক পদার্থ থাকে সেগুলো মূল্যবান পাথরের অলংকারের নমনীয়তা নষ্ট করে ফেলে। ক্লোরিন ব্লিচও বাসন-পত্র পরিষ্কার করার রাসায়নিক দ্রাবক যা আপনার স্বর্ণের গয়নাতে ছিদ্র সৃষ্টি করে এবং নষ্ট করে ফেলে।

আল্ট্রাসনিক ক্লিনার সতর্কতার সাথে ব্যবহার করুন

আপনাকে আল্ট্রাসনিক ক্লিনার কেনার সময় জেনে নিতে হবে এই ক্লিনার দিয়ে সব ধরণের পাথর এবং গয়না নিরাপদভাবে পরিষ্কার করা যায় কিনা।

আল্ট্রাসনিক ক্লিনার কিসে ব্যবহার করবেন না-

  • যেসব জেমসের উপরিভাগ পূর্ণ করার জন্য তেল, রজন এবং কাচ জাতীয় পদার্থ ব্যবহার করা হয়েছে সেসব অলংকার আল্ট্রাসনিক ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করা যাবে না।
  • মুক্তা, অঙ্গারকমণি, আইভরী অথবা এম্বার এর মত যৌগিক পদার্থের অলংকার পরিষ্কার করা যাবে না।
  • যেসব পাথরে প্লাষ্টিক এবং মোমের মত অস্থায়ী পদার্থ ব্যবহার করা হয়েছে সেসব অলংকার পরিষ্কার করা যাবে না।
  • কিছু কিছু তাপ অসহনীয় পদার্থ এর তৈরী গয়না পরিষ্কার করতে ব্যবহার করা যাবে না।

আল্ট্রাসনিক ক্লিনার জুয়েলারী বিশেষজ্ঞদের জন্য ভালো যারা খুব ভালোভাবে বিভিন্ন ধরণের জেমসের উপাদান সম্পর্কে জানে, কখন এবং কিভাবে আল্ট্রাসনিক ক্লিনার নিরাপদ ভাবে ব্যবহার করতে হবে।

পাথরের গয়নার সঙ্গে একই ধরনের লকেট দিয়ে পরতে পারেন। হাতে বা কানে বড় গহনা থাকলে গলার জন্য ছোট আকৃতির লকেট মানানসই।

যেমন টি এরকম কিছু গয়নার জন্য

অধিকাংশ রঙ্গিন পাথর কুসুম গরম পানিতে হালকা ডিটারজেন্ট দিয়ে ডুবিয়ে রেখে নরম ব্রাশ দ্বারা ঘষে ঘষে পরিষ্কার করা যায়। সামান্য টুথপেষ্ট লাগিয়ে নরম সুতি কাপড় দিয়েও পরিষ্কার করা যায়।

পানিতে ডুবিয়ে গয়না পরিষ্কার করার সময় আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। গয়না এক গ্লাস পানিতে পরিষ্কারক পদার্থ দিয়ে পরিষ্কার করতে পারেন, এতে গয়না হারাবে না যদি আপনি গয়নাটি সরাসরি ডুবিয়ে না দেন।

অন্যদিকে মুক্তার মত নরম পাথরের গয়না সহজে নমনীয়তা হারিয়ে ফেলে। তাই মুক্তার গয়না পরিষ্কার করতে একটি নতুন পরিষ্কার মেকাপের ব্রাশ নিন, হালকা গরম পানি দিয়ে আলতোভাবে ঘষে পরিষ্কার করুন।

এরপর একটি শুকনো টাওয়ালের উপর গয়নাগুলো রাখুন। এতে গয়নাটি তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যাবে। ভিজা গয়নাতে টাওয়ার দিয়ে মুছবেন না এতে গয়নাতে আচঁড় পরতে পারে। তাই গয়নাটি যতক্ষণ না ভালোভাবে শুকিয়ে যাবে ততক্ষণ পর্যন্ত এটিকে স্ট্যান্ডের উপর রাখুন।

আপনার নিয়মিত ব্যবহার করা মুক্তার মালাটিকে প্রয়োজন অনুযায়ী একটি মুক্তার সাথে আরেকটি মুক্তাকে শক্ত করে বাধাঁই করুন যাতে মালা ছিঁড়ে মুক্তার দানা হারিয়ে না যায়।

নিরাপদ স্থানে আপনার অলংকার সংরক্ষণ করুন

যথাযথ জুয়েলারী সংরক্ষণ পদ্ধতি প্রায়ই উপেক্ষিত। অলংকার কখনো ড্রয়ারে রাখবেন না, ড্রয়ারে রাখলে এটি এপাশ ওপাশ হয়ে যায় এতে গয়নাতে আচঁড় লাগতে পারে।

কখনো কাপড়ের উপরে রাখবেন না এতে পাথর নষ্ট হয়ে যায়।

দোকান থেকে আনার সময় অধিকাংশ গয়না একটি বাক্স বা ছোট সফট থলিতে থাকে যা গয়না রাখার উপযুক্ত স্থান। মরিচা ধরবে এমন ব্যাগ অথবা কাপড়ের ভাঁজের মধ্যে গয়না রাখবেন না।

উদাহরণস্বরূপ, স্টার্লিং সিলভারের অলংকার।

সিলভারের গয়না কিনতে দেখতে পারেন নতুন সব  ডিজাইন

যে সব জুয়েলারী বাক্সে রিং, চুড়ি, নাকের দুল, কানের দুল, ব্রেসলেট এবং গলার হার ঝুলিয়ে রাখার জন্য আলাদা আলাদা স্থান থাকে সেইরকম জুয়েলারী বক্সে গয়না রাখা উত্তম ও নিরাপদ।

মুক্তা এবং অপাল’স এর গয়না আদ্রতায় রাখুন। কারণ বাতাসে এর প্রাকৃতিক আদ্রতা হারিয়ে ফেলে। একটি নিরাপদ ডিপোজিট বাক্সে রাখুন, যাতে কোনো প্রকার ক্ষতি হতে না পারে।

কোথাও ভ্রমণ করার সময় আপনার অলংকারগুলোকে প্যাড দ্বারা আলাদা করা বক্সে রাখুন যাতে কোন ধরণের ক্ষতি না নয়। অনেক জুয়েলারী দোকান একটি নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর বিনামূল্যে পরীক্ষা করার অথবা পরিষ্কার করার প্রস্তাব করে থাকে। গয়না প্রতি ছয় মাস পর পর পরীক্ষা করাতে হয় এবং পরিষ্কার করাতে হয়।

ভালো প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং ভালোমানের মণিকারের দরকার হলে আপনার বন্ধু-বান্ধব বা আত্মীয় স্বজনদের পরিচিত কোন মণিকারের কাছে যাওটাই উত্তম। আপনার এলাকায় অবস্থিত GIA’s  আপনাকে একজন দক্ষ মণিকার দিয়ে সহায়তা করতে পারে যারা GIA’s স্টাফদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত।