নতুন ডিজাইনের লং স্কার্ট খুঁজছেন?

পোশাক নির্বাচনের ক্ষেত্রে ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা বেশী সুরুচিপূর্ণ। আপনার বডির ফিগার যে রকমেই হোক না কেন আপনি যদি সঠিক ডিজাইন ও রঙের পোশাকটি পরেন আপনাকে ভালো দেখাবে।

অনেক সময় পোশাকের রঙের উপরেও সৌন্দর্য নির্ভর করে। তাই সঠিক ডিজাইন ও রঙের পোশাক নির্বাচন করেন। আর স্কার্ট পোশাকটি হল ফিগার-সংবেদনশীল পোশাক। সব ধরণের ফিগারে সব ধরণের স্কার্ট মানায় না।

তাই আপনার ফিগারের সাথে মিল রেখে স্কার্ট নির্বাচন করুন।আমাদের দেশে স্কার্টের প্রচলন শুরু হয় মূলত পাশ্চাত্য দেশের অনুকরণে। অতীতে আমাদের দেশে স্কার্টের প্রচলন ছিল না বললেই চলে।

তবে বিদেশে স্কার্টের প্রচলন অনেক আগে থেকেই ছিল এখনও আছে। রাণী এলিজাবেথ থেকে শুরু করে কেড মিডিলটন পর্যন্ত সবাই স্কার্ট পরতেন। ইংরেজরা দৈনন্দিন জীবনে এই পোশাক পরিধান করতেন।

সাদমার্টে রয়েছে অনেক ধরণের ডিজাইনের স্কার্ট। লং স্কার্ট, মিনি স্কার্ট, মাইক্রো স্কার্ট, জিপসি স্কার্ট, প্লিটেড স্কার্ট, পেপলাম স্কার্ট ইত্যাদি।

এটি একটি পুফ/তুলি স্কার্ট। এই স্কার্টের সাইজ মাঝারি হয়। আর নিচের দিকটা অসমান থাকে। এই স্কার্টটি বিভিন্ন ফ্যাশন-শোতে পরা যাবে। এই স্কার্টের নিচে প্লেইন এক পার্ট কাপড় থাকে এবং তার উপরে কয়েকটি তাক তাক পার্ট থাকে।

নিচের দিকটা সামঞ্জস্যহীন থাকায় এই স্কার্টটিকে দেখতে অনেক জমকালো দেখায়।

পণ্যের বিবরণঃ

  • সাইজঃ S, M, L, XL.
  • কালারঃ ব্ল্যাক, ব্ল্যাক-বেজ, ক্রিমি-হোয়াইট।

 

এটি মাঝারি সাইজের একটি স্কার্ট। বাঙ্গালী মেয়েরা মূলত লং স্কার্ট পরতেই বেশী স্বাছন্দবোধ করেন। তবে কিছু সংখ্যক মেয়েরা এই মাঝার সাইজের স্কার্ট পরে থাকেন। স্কার্ট ঢিলেঢালা হওয়ায় গরমের দিনে পরতে বেশ আরামদায়ক।

মাঝারি সাইজের স্কার্টে পায়ের সৌন্দর্য ফুটে উঠে। এই স্কার্টটিতে দুই পরত কাপড় রয়েছে। নিচের পরতের কাপড়টি প্লেইন আর উপরের পরতের কাপড়টি নেটের উপর এমব্রয়ডারী করা এবং জরি দিয়ে কারুকাজ করা।

পণ্যের বিবরণঃ

  • সাইজঃ সব ধরণের।
  • কালারঃ লোটাস রূট পাউডার, লাইট গ্রে ব্ল্যাক, সাদা, কালো।

 

আমাদের দেশের মেয়েরা লং স্কার্ট পরতেই বেশী স্বাচ্ছন্দবোধ করেন। লং স্কার্টের সাথে টি-শার্ট বা শার্ট পরতে পারেন। যারা স্লিম তারা নির্বাচন করুন ছোট ফতুয়া বা টি-শার্ট। যারা একটু মোটা তারা নির্বাচন করুন হিপের নিচ পর্যন্ত লম্বা টপস। লং স্কার্টের সাথে মানানসই টপস পরলে দেখতে বেশ ফ্যাশনেবল লাগে। নিচের ঘের পদ্ম পাতার মত।

পণ্যের বিবরণঃ

  • সাইজঃ ৮০ সেমি., ৮৫ সেমি., ৯০ সেমি., ৯৫ সেমি., ১০০ সেমি.।
  • কালারঃ ধূসর, পান্না সাদা, পান্না লাল, কালো, পান্না নীল, সাদা, গোলাপী, বেগুনী।
  • উপাদানঃ পাতলা সিল্কের কাপড়।
  • স্কার্টের ধরণঃ লং পরী স্কার্ট।

 

এটি অত্যন্ত ফ্যাশনেবল একটি স্কার্ট। কালার কম্বিনেশও অনেক সুন্দর। এই পোশাকটি ১০০% পলিষ্টার দিয়ে তৈরী। পাতলা স্বচ্ছ সিল্কের কাপড়ের তন্তু ব্যবহার করা হয়েছে। সব সাইজের কোমরেই ব্যবহার করা যাবে।

বৈশিষ্ট্যঃ

  • সাইজঃ S, M, L
  • কালারঃ ডাবল ওয়াটার গ্রীন, ডাবল ব্ল্যাক, ডাবল গ্রীন ফ্রুট, ডাবল কোরাল পাউডার, ডাবল ন্যাকড পাউডার, থ্রী-লেয়ার ব্ল্যাক, থ্রী-লেয়ার সাদা, থ্রী-লেয়ার গ্রীন ফ্রুট, গোল্ড ওয়াইন রেড ওয়াইন, গোল্ড ব্ল্যাক, থ্রী-লেয়ার লাইট স্কাই ব্লু।

 

বর্তমান প্রজন্মের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে বেছে নিন জমকালো ধরণের স্কার্ট। আপনার পছন্দের স্কার্টটি সযত্নে-নির্বাচন করুন। গরমে স্কার্ট পরতে বেশ আরামদায়ক কারণ এর নিচের ঘের বেশী। স্কার্টের কলি উঁচু-নিচু, অসম কলি, সামনে একটু উঁচু আর পিছনে ঝোলানো, ভাঁজ ভাঁজ ঘের সব ধরনের স্কার্টই দেখতে বেশ ভালো লাগে।

এ ধরণের স্কার্টকে থ্রী-কোয়ার্টার সার্কুলার স্কার্ট বলা হয়। এর ঘের বৃত্তাকার। ঘের বৃত্তাকার হওয়ার কারণে এই স্কার্ট কোমরের থেকে নিচের কুঁচির ঘের অনেক বেশী হয়। সার্কুলার স্কার্ট সব ধরণেরই হয়ে থাকে। যেমন- লং সার্কুলার স্কার্ট, শর্ট সার্কুলার স্কার্ট, থ্রী-কোয়ার্টার হয়ে থাকে। এই স্কার্টে তিন স্তর নেট কাপড় দেয়া হয়েছে। এই ধরণের স্কার্টের সাথে বডি ফিটেড টপস ভালো মানায়। তবে এর সাথে সব ধরণের টপস এই মানায়।

পণ্যের বিবরণঃ

  • সাইজঃ ৬৫ সেমি., ৭৫ সেমি., ৮০ সেমি., ৮৮ সেমি.।
  • কালারঃ গাঢ় সবুজ, সাদা, কালো, ধূসর, রেড ওয়াইন।
  • উপাদানঃ তিন লেয়ার নেট কাপড়।

আপনি কি আপনার পছন্দের স্কার্টটি খুজে পাচ্ছেন না? তাহলে আমাদের এই পদ্ম পাতার লং স্কার্টটি নিতে পারেন। এটি নিশ্চয়ই আপনার পছন্দ হবে। লং স্কার্টের সাথে বেছে নিতে পারেন টপস অথবা টি-শার্ট। আর এই গরমে পরে স্বস্তিবোধ করবেন।

পণ্যের বিবরণঃ

  • সাইজঃ XS-80 cm, S-85 cm, M-90 cm, L-95 cm, XL-100 cm.
  • কালারঃ নীল, সাদা, লাল, আকাশী, ধূসর, সবুজ, কালো, কমলা, লাল ওয়াইন, বেগুণী, রক্তবর্ণ, বেয়ার গোলাপী, প্রিন্সেস পিংক, গ্রেইপ পার্পল, মিন্ট, রয়েল ব্লু, পিংক পার্পল।
  • দেখতে অনেক ফ্যাশনেবল।
  • কোমরঃ ন্যাচারাল।
  • তন্তুঃ পাতলা স্বচ্ছ সিল্কের কাপড়।

এই স্কার্টটি মাঝারি সাইজের একটি স্কার্ট। যাদের কোমরের দুই পাশ একটু মোটা তাদের জন্য এই স্কার্টটি উপযোগী। আপনার পায়ের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতে এই স্কার্টটি নির্বাচন করতে পারেন। স্কার্টটা দেখতে ফাঁপা হুক ফুলের মতো এবং নেট কাপড়ের উপর জরি দিয়ে কাজ করা। স্কার্টের নিচে এক পার্ট মোটা প্লেইন কাপড়, তার উপর আবার দুই তাক নেট কাপড়ের উপর জরি দিয়ে কাজ করা। স্কার্টটি দেখতে অনেক জমকালো।

পণ্যের বিবরণঃ

  • সাইজঃ ওয়ান সাইজ।
  • কালারঃ কালো, সাদা, খাকি।
  • উপাদানঃ নেট, জরি।

এটি একটি স্লিম স্কার্ট। এই ধরণের স্কার্ট সেমি-লং হয়ে থাকে। ঘের বেশী না থাকায় এক পাশের হাটুর উপর থেকে কাটা থাকে। এতে করে হাটার সময় পা দেখা যায়। আপনি যদি আপনার পায়ের সৌন্দর্য পোশাকের মাধ্যমে ফুটিতে তুলতে চান তাহলে এই স্লিম স্কার্ট পরিধান করতে পারেন। এই স্কার্টের সাথে আপনি লম্বা ব্লেজার অথবা টপস পরিধান করতে পারেন। তবে টপস স্কার্টের ভিতরে ঢুকিয়ে পরতে হয়

। পরার সময় খেয়াল রাখতে হয় যেন কোমরের ফিতা না দেখা যায়। পোশাকটিকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতে আপনি গলায় নেকলেস পরতে পারেন। এই ধরণের স্কার্ট ১৮-২৪ বয়সের মেয়েদের ভালো মানায়, তবে আপনি স্লিম হলে সব বয়সেই মানাবে।

পণ্যের বিবরণঃ

  • সাইজঃ ওয়ান সাইজ।
  • কালারঃ কালো, ব্ল্যাক থিকার।
  • উপাদানঃ তুলা।

এ ধরণের স্কার্টকে প্লিটেড স্কার্ট বলা হয়ে থাকে। আধুনিক মেয়েদের জন্য এই স্কার্ট খুব মানানসই। এ স্কার্টের ঘের অনেক বেশী থাকে এবং ভাঁজ ভাঁজ করা থাকে। স্কার্টটি লম্বায় কম থাকে, হাটুর একটু নিচ পর্যন্ত। এ স্কার্টের সাথে টপ ট্যাঙ্কের পোশাক পরতে পারেন। জিন্সের জ্যাকেটও পরতে পারেন। আকর্ষণীয় ও সাহসী রূপে নিজেকে কোথাও উপস্থাপন করতে চাইলে এই প্লিটেড স্কার্টটিই আপনার জন্য উপযোগী।

পণ্যের বিবরণঃ  

  • সাইজঃ M, S, L, XL.
  • কালারঃ নেট ইয়ার্ন ব্ল্যাক, ব্ল্যাক, লাইনিং ইডিশন ব্ল্যাক, বিউটি সিল্ক ব্ল্যাক, সেইন্ট ব্ল্যাক, বিউটি সিল্ক ডার্ক গ্রে, লেস গ্রে, লেস কার্ড খাকি, বিউটি ফোরজিং ওরেঞ্জ, বিউটি সিল্ক ব্রাঊন ইত্যাদি।

টিন-এজারদের উপযোগী পোশাক স্কার্ট খুবই কদরের। স্কার্ট যেমন ঘরে ক্যাজুয়াল পোশাক হিসেবে পরা যায় তেমনি অফিস, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, পার্টি বা ফ্যাশন-শোতেও পরা যায়। আর এ জন্যই স্কার্টকে বিভিন্ন ডিজাইনে তরুণীদের কাছে তুলে ধরা হয়েছে।

স্কার্ট ঢিলেঢালা হওয়ার গরমে স্বস্তি ও ফ্যাশনের কথা ভেবে অনেক মেয়েরা স্কার্ট পরতে বেশী পছন্দ করে। বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এই স্কার্টের প্রতি বেশী রুচিশীল। ক্যাম্পাসের আড্ডায় স্কার্ট আর টপস পরতেই মেয়েরা বেশী স্বাছন্দ বোধ করে। পাশ্চাত্য দেশের অনুকরণে আমাদের দেশে স্কার্ট পরা প্রচলিত হয়।

প্রবন্ধটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপডেট পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।