আপনার জ্যাকেট পরিষ্কার করবেন ভাবছেন?

আপনার জ্যাকেটের স্থায়িত্ব বৃদ্ধি এবং সৌন্দর্য ধরে রাখার জন্য এটি পরিষ্কার করা একটি অত্যাবশ্যকীয় কাজ।

অনেক সময় আমরা বাসায় নিজেরাই ধুয়ে ফেলি । আবার অনেকেই লণ্ড্রী কিংবা ড্রাই-ওয়াশ এর মাধ্যমে জ্যাকেট পরিষ্কার করান। যেভাবেই আমরা পরিষ্কার করিনা কেন, জ্যাকেটের সৌন্দর্য ধরে রাখতে পরিষ্কারের সময় কিছু ব্যাপার খুব গুরুত্ব সহকারে লক্ষ্য রাখতে হয় ।

অনেক সময় পরিষ্কার করার সময় এসব বিষয় আমরা মাথায় রাখিনা আর তাই প্রভাব পরে আমাদের জ্যাকেটের স্থায়িত্ব কিংবা সৌন্দর্যের উপর।

চলুন জেনে নেই জ্যাকেট পরিষ্কার করার জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস।

১. জ্যাকেট পরিষ্কার করার আগে ভালো করে ভেতর বাহির ঝেরে পরিষ্কার করুন। উলের কিংবা এরকম ধরনের কাপরের জ্যাকেট হলে ব্রাশ ব্যাবহার করে লেগে থাকা ময়লা পরিষ্কার করুন । সম্ভব হলে সম্পূর্ণ জ্যাকেট উল্টে পাল্টে ঝেরে ফেলুন।

২. এমন ধরনের পাউডার অথবা ক্লিনার ব্যাবহার করুন যার দ্বারা শুধু মাত্র জ্যাকেট কিংবা এই ধরনের সকল বহিরাবরণ পরিষ্কার করা হয়।

৩. সাধারণ ডিটারজেন্ট , কাপর ধোয়ার সাবান অথবা লিকুইড ক্লিনার দ্বারা পরিষ্কার করার ফলে আপনার জ্যাকেটের উজ্জ্বলতা এবং স্থায়িত্ব নষ্ট হবার সম্ভাবনা থাকে ।  এসব ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।

৪. ওয়াশিং মেশিন ব্যবহার করে যদি পরিষ্কার করতে চান তবে অল্প কাপড়ের সাথে ধুয়ে ফেলুন। অতিরিক্ত কাপড়ের সাথে ওয়াশিং মেশিন এর মাধ্যমে ধোবার ফলে আপনার জ্যাকেট নষ্ট হবার সম্ভাবনা থাকবে।

৫. সব সময় ফ্রন্ট লোডিং ওয়াশিং মেশিন ব্যবহার করুন । কখনই টপ লোডিং ওয়াশিং মেশিন দ্বারা জ্যাকেট পরিষ্কার করবেন না।

৬. ওয়াশিং মেশিনের ডিটারজেন্ট কম্পার্টমেন্ট এর মাঝে কোন ডিটারজেন্ট আছে কিনা পরিষ্কারের আগে সেটা ভালো করে লক্ষ্য রাখবেন । কারণ  আপনি ইচ্ছে করলে আপনার জ্যাকেট ডিটারজেন্ট ছাড়া হট ওয়াশ করেও পরিষ্কার করতে পারবেন ।

৭. উল কাপড় অথবা ডেলিকেট কাপড়ের  জন্য আপনি কোল্ড ওয়াশ ব্যবহার করবেন সবসময় ।

৮. ওয়াশিং মেশিনের মাঝে একদম সঠিক পরিমাণে ক্লিনার অথবা ওয়াশিং পাউডার মিশ্রিত করুন । ওয়াশ এন্ড প্রুফ নামক ক্লিনার ব্যবহার করে দেখতে পারেন । এই ক্লিনার এর মাত্র ৬০মিলি তেই আপনার জ্যাকেট পরিষ্কার হবে নিখুঁত ভাবে ।

৯. ড্রায়ার এর মাঝে কখনই এয়ার ড্রাই ব্যবহার করবেন না । এর ফলে আপনার জ্যাকেটের কাপড় নষ্ট হয়ে যাবে ।

১০. সবসময় লো-হিট সিস্টেম  ব্যবহার করে শুকোতে চেষ্টা করুন ।

১১. ড্রায়ার এর ভেতরে আপনি টেনিস বল দিয়ে দিতে পারেন এর ফলে আপনার জ্যাকেটের উল গুলো কখনো চটচটে হয়ে থাকবেনা । একদম নতুনের মত আলাদা আলাদা এবং সুন্দর থাকবে ।

১২. সবশেষে ভালো মত লক্ষ্য করবেন যেন কখনই আপনার জ্যাকেট আধা শুকনো আধা ভেজা অবস্থায় না থাকে । সম্পূর্ণ ভাবে আপনার জ্যাকেট টি শুকিয়ে নিতে চেস্টা করুন ।

জুতা ও কাপড়ের যত্নের সেরা ১৪টি টিপস দেখুন। জেনে নিন জুতা পরিষ্কার রাখার কিছু প্রয়োজনীয় টিপস।