চেহারার সাথে মানানসই চশমা কিনতে চাচ্ছেন?

ছেলেদের চশমা বা মেয়েদের নতুন চশমা পছন্দ করা কঠিন কিছু না। কিন্তু কোন ধরণের চশমা আপনার চেহারার সাথে মানানসই হবে সেটা নির্বাচন করা কঠিন।

আপনি হয়তবা চশমা ব্যবহারের কিছু কৌশল জেনে থাকবেন- কোন চেহারার সাথে কোন চশমাটি ভালো দেখাবে। কিন্তু আমাদের এই আর্টিকেলে আপনি সব টিপস ও ট্রিকস জানতে পারবে।

এখন আমরা আপনাকে বলব কিভাবে সবদিক বিবেচনা করে চশমা পছন্দ করবেন। যাতে মনে হয় চশমাটি আপনার চেহারার জন্যই তৈরী। আমরা আপনাকে আরো বলব চশমা কেনার সময় কি কি বিষয় এড়িয়ে চলবেন।

নিচের অংশ পড়ুন আর জেনে নিন ২০১৭ সালের কোন সানগ্লাস ও চশমাগুলো সব ধরণের চেহারার মানুষের জন্য উপযোগী। আমাদের ভার্চুয়াল আয়নাতে আপনার ছবি আপলোড করে দেখে নিতে পারেন আপনার চেহারার সাথে মানানসই চশমা কোনটি।

১। কিভাবে আপনার চেহারার সাথে মানানসই চশমা খোঁজে নিবেন-

চশমার কেনার জন্য দোকানে যাওয়ার আগে প্রথমেই আপনার চেহারার আকার জেনে নিতে হবে। আপনার চেহারার দৈর্ঘ্য ও প্রস্থের উপর নির্ভর করবে কোন সাইজের চশমা আপনার চেহারায় ভালো দেখাবে এবং পরতে আরামদায়ক হবে।

চেহারার দৈর্ঘ্য

চেহারার দৈর্ঘ্য পরিমাপ করা হয় কপালের একপার্শ্ব থেকে অন্যপার্শ্ব পর্যন্ত। চশমা অর্ডার করার আগে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে, ফ্রেমের সাইজ যেন আপনার চেহারা থেকে খুব বড় বা খুব ছোট হয়ে না যায়।

  • চেহারার দৈর্ঘ্য মাপার জন্য সোজা রুলার নিলে ভালো হয়। মেজারিং ট্যাপ দিয়ে চেহারার দৈর্ঘ্য মাপা খুব ঝামেলার।
  • আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কপালের একপাশ থেকে অন্যপাশের দূরত্ব পরিমাপ করুন।
  • আপনার চেহারার দৈর্ঘ্য গ্লাসের ফ্রেমের দৈর্ঘ্যের সাথে সমান হতে হবে। ফ্রেমের পুরো দৈর্ঘ্যের মাপ জানতে ফ্রেমের দৈর্ঘ্য নাকের সেতুর দৈর্ঘ্যের সাথে যোগ করুন। ফ্রেমের মোট দৈর্ঘ্য আপনার চেহারার দৈর্ঘ্যের সাথে সমান হবে।

২। আপনার চেহারার সাথে মিল রেখে কোন সাইজ ফ্রেমের চশমা নিবেন-

সংকীর্ণ মুখঃ ১১০ মিমি.- ১২৫ মিমি.। ফ্রেম সাইজ হবে- ১১৫ মিমি.- ১২৯ মিমি.।

হালকা সংকীর্ণ মুখঃ ১২৫মিমি.- ১৩৫ মিমি.। ফ্রেম সাইজ হবে- ১২৯ মিমি.- ১৪০ মিমি.।

চওড়া মুখঃ ১৩৫ মিমি.- ১৫২ মিমি. বা এর বেশি। ফ্রেম সাইজ হবে- ১৩৯ মিমি.- ১৫৫ মিমি. বা এর বেশি।

চেহারার প্রস্থ

কপালের উপরিভাগ হতে থুতনির শেষভাগ পর্যন্ত রুলার দিয়ে মাপুন। আপনার চেহারার প্রস্থ জানতে নিচের নিয়মটি ব্যবহার করুন-

  • যদি দৈর্ঘ্যের চেয়ে প্রস্থ বেশি হয় তাহলে আপনার চেহারা লম্বা আকৃতির।
  • যদি দৈর্ঘ্যে আর প্রস্থ সমান হয় বা প্রস্থ একটু বেশি হয় তাহলে আপনার চেহারা ছোট সাইজের।

লম্বাকৃতি মুখঃ গোল বা স্কয়ার ফ্রেমের চশমা আপনার চেহারার সাথে মানানসই।

ছোট আকারের মুখঃ আপনার জন্য উত্তম ছোট সাইজের চশমা। তবে মোটা ফ্রেমের চশমা পরবেন না, এতে আপনার চেহারাকে আরো ছোট দেখাবে। ক্লিয়ার ফ্রেমের ছোট সাইজের চশমা আপনার চেহারায় ফ্যাশনেবল লাগবে।

ছোট আকৃতির চেহারায় কি রকম চশমা ব্যবহার করবেন-

  • যদি আপনার চেহারা ছোট হয় তাহলে সরু এবং ছোট ফ্রেমের রাউন্ডেড চশমা পরবেন।
  • যদি আপনার চেহারা ছোট সাইজ থেকে একটু বেশি হয় তাহলে সরু এবং ছোট ফ্রেমের স্কয়ার বা রেক্ট্যাঙ্গেল রাউন্ডেড চশমা পরবেন।

বড় আকৃতির চেহারায় কিরকম চশমা ব্যবহার করবেন-

  • লম্বা, বড় ও চওড়া চেহারায় মোটা ফ্রেমের ওভার-সাইজের চশমায় পরবেন। তবে এই রকম ফ্রেমের চশমা নিবেন যাতে আপনার চেহারার একপাশ থেকে অন্যপাশ পুরোটাই কভার করে।
  • আপনার চেহারার সাথে মিল রেখে স্কয়ার, রেক্ট্যাঙ্গেল বা রাউন্ডেড চশমা পরতে পারেন।

৩। আপনার চেহারার আকৃতি কিভাবে বুঝবেন-

গোল আকৃতির চেহারাঃ যদি চেহারায় কোন কৌণিক বিন্দু না থাকে, তাহলে এটি গোলাকৃতির চেহারা।

ডিম্বাকৃতি চেহারাঃ এ ধরণের চেহারার দৈর্ঘ্য প্রস্থের চেয়ে দ্বিগুণ হয়ে থাকে।  চেহারার থুতনি কপালের আকারের থেকে সরু হয়ে থাকে এবং চোখের নিচের গালের অংশ উচু থাকে।

হার্ট-শেইপ চেহারাঃ এ ধরণের চেহারার কপালের অংশ বড় থাকে আর থুতনির দিকের অংশ সরু থাকে।

ডায়ামন্ড-শেইপ চেহারাঃ এ ধরণের চেহারায় কপালের অংশ আর চোয়ালের অংশ প্রায় সমান থাকে।

গোল চেহারার জন্য চশমাঃ

স্কয়ার বা আয়তকার মোটা ফ্রেমের চশমা ব্যবহার করবেন। ক্যাট-আই, এভিয়েটর/নেভিগেটরস, ওয়েফেরার এর বড় সাইজের চশমা গোল চেহারার জন্য খাপে খাপ। রাউন্ড ফ্রেম ও পাতলা রিমলেস ফ্রেমের চশমা এড়িয়ে চলবেন।

আয়তকার/স্কয়ার চেহারার জন্য চশমাঃ

রেক্ট্যাঙ্গেল ও স্কয়ার ফ্রেমের রাউন্ডেড চশমা ব্যবহার করবেন। মোটা, সরু সব ধরণের ফ্রেমের চশমা এ ধরণের চেহারার সাথে মানানসই। ওভার-সাইজ স্কয়ার চশমা এড়িয়ে চলবেন।

হার্ট-শেইপ চেহারার জন্য চশমাঃ

স্কয়ার, রেক্ট্যাঙ্গেল, ক্যাট-আই ফ্রেমের চশমাতে খুব ভালো মানায়।

ডায়ামন্ড-শেইপ চেহারা জন্য চশমাঃ

রাউন্ড ও রেক্ট্যাঙ্গেল ফ্রেমের ন্যারো ক্যাট-আই, এভিয়েটর ও ক্লাবমাষ্টার চশমাগুলো একদম মানিয়ে যায়।

চশমা আপনার ফ্যাশন এবং চোখের উপকার দুটোই করে থাকে। তাই চশমা কেনার ক্ষেত্রে চেহারার সাথে মানিয়ে যায় এবং পরে বিরক্তবোধ না করেন, এইরকম চশমা কিনবেন।

আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।