পোশাকের পরেই নারীদের সাজসজ্জার অন্যতম উপকরণ হচ্ছে গয়না। আধুনিকতার সাথে সাথে তৈরী হচ্ছে নানান ধরণের গয়না। সোনা, রুপা, হীরার গয়নার পাশাপাশি তৈরী হচ্ছে অ্যান্টিক, কাঠের গয়না, মাঠির গয়না ইত্যাদি।

আপনার পছন্দের প্রিয় গয়নাটি অনেক দিন ব্যবহার করতে হলে এবং এর সঠিক সৌন্দর্য ধরে রাখতে হলে জানতে হবে এর সঠিক পরিচর্যা। একেক ধরণের গয়নাকে একেক রকমভাবে যত্ন করতে হয়। আপনার গয়নাটি যদি সঠিক যত্নে থাকে তাহলে তা দীর্ঘ দিন পরেও নতুনের মত ঝকঝকে থাকবে।

 

আপনার যত্নের গয়নাটি পরবর্তী প্রজন্মের কাছেও তা নতুনের মতই লাগবে। গয়নার যত্ন নেয়ার সঠিক পদ্ধতি সম্পর্কে সবার তেমন ভালো ধারণা নেই। তাহলে আজকেই জেনে নিন আপনার মূল্যবান গয়নার যত্নের সঠিক পদ্ধতি।

সমসময় যা করবেন-

  • গয়না পরার পূর্বে লোশন, কসমেটিকস, চুলের-স্প্রে এবং পারফিউম ব্যবহার করবেন।
  • পোশাক পরিবর্তন করার সময় একটি সফট সুতি কাপড় দিয়ে গয়নার প্রতিটা অংশের ময়লা, তেল ও ঘাম মুছে দিন।
  • ফ্যাব্রিক-লাইনড বাক্সে আলাদাভাবে ও সারিবদ্ধভাবে রাখুন যাতে সবগুলো গয়না একসাথে আটকে না যায়। গয়না একটার উপর আরেকটা আটকে গেলে দাগ পরে যায়, অনেক সময় খুলতে গেলে ছিঁড়েও যেতে পারে।

কখনোই যা করা যাবে না-

  • ঘরের কাজ করার সময়, বাগানে যত্ন নেবার সময় অথবা ব্যায়াম করার সময় গয়না খুলে রাখবেন।
  • বাসন-পত্র পরিষ্কারক কেমিক্যালের সংস্পর্শে নিবেন না।
  • কখনো গরম পানির টাবে বা ক্লোরিন মেশানো সুইমিং পুলে গয়না পরে গোসল করতে যাবেন না।

টিপস জানার আগে নজরকারা কিছু গয়না দেখে নিন, যা কিনা অনুষ্ঠান কিম্বা পার্টি তে পড়তে পারবেন।

শাড়ির সঙ্গে গয়না. গয়না যেমনই হোক শাড়ির সঙ্গে মানানসই হওয়া চাই। কোন শাড়িতে কেমন গয়না মানাবে দেখতে চোখ রাখুন-

গয়না পরিষ্কার করার টিপস-

  • একটি নিরাপদ স্থানে গয়না পরিষ্কার করুন, ছিদ্রযুক্ত বেসিনেও না যেখানে গয়নার একটি টুকরা ছিটকে পড়লে ড্রেনে চলে যাবে।
  • ময়লা বা ময়লার কণা পরিষ্কার করার জন্য নরম ব্রাশ ব্যবহার করুন। কখনোই ধারালো বা শক্ত জাতীয় কিছু দিয়ে গয়না পরিষ্কার করতে যাবেন না।
  • যদি আপনার গয়নার উজ্জলতা কমে যায় বা কালচে ভাব দেখায় তবে হীরা বা রত্ন পাথরের উলটো দিকে মাঝে মাঝে লোশন, সাবান বা ত্বকে ব্যবহৃত তেল দিয়ে পরিষ্কার করুন।
  • বেশী ময়লাযুক্ত গয়না দোকানে নিয়ে দক্ষ লোক দিয়ে পরিষ্কার করান।
  • হালকা গরম পানিতে সামান্য ডিটারজেন্ট দিয়ে হীরের গয়নাটি কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রেখে নরম ব্রাশ দিয়ে ঘষে এর উপর পানি ঢেলে পরিষ্কার করুন।
  • মুক্তার গয়না কখনো রাসায়নিক পদার্থ বা দ্রাবকের সংস্পর্শে রাখবেন না এবং প্রতিটা গয়না একটি নরম ব্যাগে রাখবেন।
  • রত্ন পাথরের গয়না কোন রাসায়নিক পদার্থ, দ্রাবক বা আল্ট্রাসনিক দ্বারা ঐ রত্ন পাথরের নিদির্ষ্ট রং করার পদ্ধতি জানা ছাড়া কখনো রঙ করাবেন না।

গয়না দীর্ঘ দিন ব্যবহার করার টিপস-

  • নিরাপত্তার জন্য আপনার জুয়েলারী পরীক্ষাগারের তথ্য একটি নিরাপদ স্থানে রাখুন, জুয়েলারী গয়নার থেকে আলাদা।
  • কোন গয়না ময়লা পরে নষ্ট হয়ে গেছে কিনা, কোন গয়নায় ফাটল ধরেছে কিনা এবং কোন গয়নার মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে কিনা তা বছরে অন্তত একবার একজন জুয়েলারী বিশেষজ্ঞ দ্বারা গয়না নিশ্চিত করান এবং মেরামতের প্রয়োজন হলে মেরামত করান।
  • গয়নাকে তার আসল অবস্থায় রাখতে হলে গোল্ড প্লেটেড গয়নাকে পুনরায় প্রলেপ/ রঙ করা হয়েছে কিনা, প্লাটিনামের গয়নাকে পুনরায় পালিশ করা হয়েছে কিনা, ফাটল ধরা গয়নাকে পুনরায় মেরামত করা হয়েছে কিনা তা লক্ষ্য রাখতে হবে।
  • নিয়মিত ব্যবহার করা মুক্তার মালাটিকে প্রয়োজন অনুযায়ী একটি মুক্তার সাথে আরেকটি মুক্তাকে শক্ত করে বাধাঁই করুন যাতে মালা ছিঁড়ে মুক্তার দানা হারিয়ে না যায়।
  • আপনার প্রাত্যাহিক জীবনধারা এবং কাজের ধারার সাথে মিল রেখে প্রাত্যাহিক ব্যবহারের জন্য গয়না নির্বাচন করুন।

শাড়ি কিংবা ফতুয়া, সাধারন অনুষ্ঠান কিংবা বিয়ে বাড়ি, বর্ষা কিংবা হেমন্ত সবকিছুর সাথে তাল মেলাতে এই গয়না গুলি  ফরমায়েশ  দিয়ে আনতে পারেন।