এই পর্বে আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি- পোশাকের যত্ন নেওয়া, পরিষ্কার ও সংরক্ষণ করার দারুণ সব টিপস

যত্ন নেওয়া পোশাক, অযত্নে রাখা দামি পোশাকের চেয়ে ভাল দেখায়। ভাল মানের পোশাক অযত্নে রাখলে সেটি নষ্ট হয়ে যায়। দুঃখজনকভাবে আমরা পুরাতন কাপড় ফেলে দিতে অভ্যস্ত, কাপড় ইস্ত্রি করা, রিপু করা, ব্রাশিং করা আমাদের কাছে বিরক্তিকর লাগে।

যদিও এক ইঞ্চি পরিমান ছেড়া পুনরায় বুনে রিপু করা যায়, কেন এই ব্যয়বহুল প্রক্রিয়ার মধ্যে যাবেন? কাপড়ের সুরক্ষার জন্য যে খরচ হয়, এর পরিবর্তে নতুন কাপড় কিনতে আরও বেশি খরচ হবে।

প্রতিরোধের এক আউন্স নিরাময়ের এক পাউন্ড থেকে মূল্যবান।

কাপড়ের সঠিক পরিচর্চায় শৃঙ্খলা প্রয়োজন, এটা চলতেই থাকবে এবং আপনার ব্যস্ত সময়সূচি থেকে সময় বের করে নিতে হবে। বাড়িতে আপনার গাড়ীর যত্ন নেয়া এবং সুগভীর সুসম্পর্ক বজায় রাখার মত আপনার জীবনের এক ছোট্ট প্রতিচ্ছবি পোশাকের সুরক্ষায় সঠিকভাবে ও নিরবিচ্ছিন্ন শৃঙ্খলার প্রয়োজন।

ট্রাউজার ও জ্যাকেট ব্রাশ দিয়ে ঝেড়ে নিন

প্রত্যেকবার ব্যবহারের পর খাড়া (spike) পশমের ব্রাশ দিয়ে আপনার পোশাক ঝেড়ে রাখুন, এটা করতে মাত্র ৩০ সেকেন্ড লাগবে। জ্যাকেট, স্যুট ব্রাশ দিয়ে ঝাড়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ, এতে ময়লা ও খাবারের অংশ স্থায়ীভাবে কাপড়ের সুতার মধ্যে আটকে যাবার আগে দূর করে ফেলা যায়। একবার খাবার আটকে গেলে তা কাপড়কে পচাতে শুরু করে এবং পোকামাকড়কে আকৃষ্ট করে।

ভাবছেন কোথায় পাবেন ফ্যাশনেবল সব ট্রাউজার ও জ্যাকেট? অনলাইন শপিং সাদমার্ট থেকে কিনুন নির্ভাবনায়।

সাধারনত যে সময় পরপর ধোপাকে কাপড় দেন, প্রতিদিন ব্রাশ করলে তার থেকে দুই-তিন গুন বেশি সময় পরপর দিলেই হবে। ব্রাশ ও বাতাস দিয়ে কাপড় ঝাড়ুন এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আবার ব্যবহার করুন।

পোশাকের ছোট রিপু ও পরিবর্তন

প্রত্যেক বড় সমস্যা ছোট থেকে শুরু হয় এবং তাৎক্ষণিক পদক্ষেপের অভাবে ক্রমেই তা বেড়ে যায়। আপনার ট্রাউজার কি পিছনের দিকে টাইট? তাহলে আপনার ওজন কমানোর আগেই ট্রাউজারের সেলাই ফেটে যাবে। এরচেয়ে ভাল ট্রাউজারের সেলাই খুলে ১ ইঞ্চি ঢিলা করে নিন, এটা ভাল দেখাবে এবং পরে আরাম পাবেন।

পছন্দের জ্যাকেট বেছে নিতে সাদমার্ট এ ঢুঁ মারতে পারেন

আপনার জ্যাকেটের বোতাম কি খুলে পরে যাচ্ছে? সুতা কেটে ফেলুন এবং রাতেই ঠিক করে সেলাই করে নিন। একবার খুলে পড়ে গেলে বোতামটি হারাবেন অথবা একই ধরনের বোতাম খুঁজে পেতে অনেক সময় লাগবে, খুঁজে না পেলে পয়সা খরচ করে নতুন আর এক সেট বোতাম কিনতে হবে।

কাপড় ইস্ত্রি করা শিখুন

আমি যখন মিলিটারি স্কুলে অফিসার প্রার্থী ছিলাম তখন কাপড় ইস্ত্রি করা শিখেছিলাম, প্রতি রাত্রে ঘুমানোর সময় ঘণ্টার পর ঘণ্টা ব্যয় করতাম পরিদর্শনের জন্য পোশাক প্রস্তুত করতে- পোশাক ঢেউ খেলানো, পরিষ্কার ও ভালোভাবে ইস্ত্রি করতে। ইস্ত্রি করা মানে একটা শার্টকে পূর্ণ আকৃতি দেয়, তীক্ষ্ণ কলার,  আস্তিন এবং সঠিকভাবে চাপা পিছনের অংশ সর্বাধিক মনোযোগ আকর্ষণ করে।

স্টিমিং

কাপড় থেকে কোঁচকানো ভাব দূর করার একটি দ্রুত ও অসাধারণ উপায় হচ্ছে স্টিমিং। হোক সেটি বড় স্টিম মেশিন অথবা ইস্ত্রি এর সাথে যুক্ত স্টিম সিস্টেম। এটাতে কাপড়ের ক্ষতি কম হয় যেহেতু গরম লোহা কাপড়কে স্পর্শ করে না। যদিও সুতি কাপড় থেকে স্টিমিং করে কোঁচকানো ভাব পুরোটাই দূর করা যায় না। রেশমি কাপড়ে স্টিমিং করার সময় খুব সতর্ক হতে হবে।

পুরুষের পোশাক ও সু সংরক্ষণ

কাপড় ও জুতা ঠাণ্ডা, শুষ্ক, পরিষ্কার ও অন্ধকার স্থানে রাখতে চেষ্টা করুন। এই চারটা বিষয় ব্যাকটেরিয়া, পোকামাকড়, আলট্রা-ভায়লেট দ্বারা ক্ষতি এবং কালার ফ্যাকাসে হওয়া থেকে রক্ষা করে। যদি পোশাক ১ মাসের বেশি সময়ের জন্য ঝুলিয়ে রাখতে হয় তবে কাপড়ের ব্যাগে রাখুন যাতে ময়লা না জমে।

হ্যাঙ্গার

তারের হ্যাঙ্গার স্থায়ীভাবে কাপড়ের ক্ষতি করতে পারে, বিশেষকরে উলের পোশাক যেহেতু এতে কদাকার ভাঁজ সৃষ্টি হয় যা দূর করা খুবই কষ্টকর। একটু বেশি খরচ করে কাঠের হ্যাঙ্গার (শার্টের জন্য ১/৪ ইঞ্চি ও স্যুটের জন্য ১ ইঞ্চি চওড়া কাধের) ক্রয় করুন।

সু-ট্রি

যে ব্যক্তি চামড়ার জুতা কয়েক বছর ধরে ব্যবহার করতে চায়, তার জন্য সু-ট্রি কিনে নেওয়া দরকার। এটা জুতার আকৃতি ঠিক রাখে এবং চামড়াকে মুচড়িয়ে যাবার হাত থেকে রক্ষা করে যা থেকে জুতা অকালে ভেঙ্গে যেতে পারে। এটি চামড়া ও সোল থেকে অতিরিক্ত আদ্রতা শোষণ করে নেয়।

উল সুরক্ষা- মথ বল, ল্যাভেন্ডার ও টাইট সিল

রেশম একটি বিলাসী জিনিস এবং অনেককাল আগে থেকে সমাজে ব্যবহার হয়ে আসছে। কিন্তু, এই দামি রেশমী পোশাকটিকে যত্নে না রাখলে ও পরিষ্কার না করলে সহজে নষ্ট হয়ে যায়। যদি আপনার অব্যবহৃত ফ্রিজার থাকে তাহলে কাপড় এর ভিতর রেখে ৭২ ঘণ্টা সংরক্ষন এতে আপনার জ্যাকেটে থাকা পোকা-মাকড়ের ডিম নষ্ট হয়ে যাবে। একাজে মথ বল ব্যবহার করা যায়, কিন্তু সেগুলো বিষাক্ত ধুয়া সৃষ্টি করে যা থেকে পড়ে বাজে গন্ধ ছড়ায়।

যে সোয়েটার গুলো আপনার ব্যাক্তিত্বের মাত্রা আরো বাড়িয়ে তুলবে

পরিষ্কার ও অপরিস্কার রেশম এক সাথে রাখবেন না, ড্রাই ক্লিনিং শুধু পোকার ডিম নষ্ট করে, ক্লিনিং এর পর কোন সুরক্ষা দেয় না। তাই, একটি পোকা ধরা রেশমি কাপড় গরমের সময় এক গাদা উলের স্যুটের সাথে রাখলে সবগুলো নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

সুতি কাপড়ের সুরক্ষা- শুষ্ক, ঠাণ্ডা ও খোলা জায়গা

সুতি কাপড়ে পোকা লাগলে একটু চিন্তার ব্যাপার। যাই হোক সুতি কাপড় দীর্ঘ সময় আদ্র স্থানে থাকলে স্থায়ীভাবে নষ্ট হতে পারে। মাঝারি আদ্রতা সরাসরি সেলুলোজ ফাইবার নষ্ট করে দেয়। মনে রাখতে হবে সুতি কাপড় মজবুত কিন্তু অবিনশ্বর নয়।

আকর্ষণীয় শার্টের কালেকশন দেখতে সাদমার্ট এ ঢুঁ মারতে পারেন

অল্প জায়গার ভিতর প্রয়োজনীয় জিনিস গুলো হাতের কাছে রাখুন

একজন মানুষের জিনিসপত্র রাখার কতটুকু জায়গা আছে টা নির্ভর করে তার বাড়ির সাইজ, বয়স ও লোকেশনের উপর। বাক্তিগতভাবে, আমার একটা ছোট বাড়ি আছে,এর মাস্টার বেডরুমের সাথে ৬ ফিট লম্বা হ্যাঙ্গার স্পেস( Almira) আছে।

আমার স্ত্রী আমাকে ১৮ ইঞ্চি জায়গা ব্যবহার করতে দেয়!!!

এই অল্প জায়গাই অনেক গুলো কাপড় আমি কিভাবে রাখব?

এই অল্প জায়গায় সব মানেজ করার মূলমন্ত্র হল আপনার কাপড় রাখার স্থান সময়ের সাথে পরিবর্তন করুন। যে পোশাক আপনি ব্যবহার করবেন না সেটি ভাজ করুন, প্যাক করুন, মার্ক করুন এবং সংরক্ষন করুন। এতে করে শুধু প্রয়োজনীয় কাপড়েই আমার হাত পড়ে, যখন আবহাওয়া পরিবর্তিত হয় আমি জ্যাকেট ও শার্ট গুলোরও স্থান পরিবর্তন করি। বায়ু চলাচল ও খুঁজে পাবার সুবিধার্থে আমি প্রত্যেক পোশাকের মাঝে ১/২ ফাকা রাখি।

হাতে ধোয়া

আপনার ওয়াশিং মেশিন আছে বলেই, যে সামান্য একটু কফির দাগ ওঠানোর জন্য প্রতিবার ওয়াসিং মেশিন ব্যবহার করবেন তা ঠিক নয়। ছোট্ট পাত্রে পানি নিয়ে হাত দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দাগের স্থানে একটু গুড়ো সাবান লাগিয়ে অপেক্ষা করুন এবং ধুয়ে ফেলুন, নিংড়ান, শুকাতে দিন।

ঝুলিয়ে দিয়ে শুকান

যখন ড্রাইয়ার ছিল না তখন দড়িতে ঝুলিয়ে কাপড় শুকাতাম। ড্রাইয়ার যে ভাবে কাপড় শুকায় তা আমি পছন্দ করলেও দামী কাপড় গুলো আমি এটাতে শুকাই না, কারণ অতিরিক্ত তাপ ও কম্পনের ফলে কাপড় আস্তে আস্তে নষ্ট হয়ে যায়।(তোমার কি মনে হয়, সুতা গুলো কোথা থেকে আসে? হ্যাঁ, এটা আস্তে আস্তে ছিঁড়ে যাওয়া অংশ) এর পরিবর্তে আমি কাপড় গুলো বারান্দায় পিন দিয়ে দড়িতে আটকে দেই এবং এক ঘণ্টার মধ্যে শুকিয়ে যায়।

শার্ট তাড়াতাড়ি দরকার? হালকা ভেজা অবস্থায় আয়রনের স্টিম ফাংশন বন্ধ রেখে শার্ট ইস্ত্রি করুন, শার্টের নিজস্ব আদ্রতা দিয়ে সুতি কাপড় ইস্ত্রি করুন।

আশা করি, পোশাক যত্ন নেওয়ার এই ধাপগুলো আপনার পছন্দ হয়েছে- ব্রেট এবং আমি বুঝতে পেরেছিলাম যে কাপড় তৈরির ওয়েবসাইট এ বিষয়ে উপযুক্ত তথ্য ছিল না, এখন আশা করি এই প্রবন্ধে সেগুলো পাবেন। আরও জানতে চান? দয়া করে নিচে মন্তব্য করবেন এবং আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন।